পাক-নাপাক সংক্রান্ত কিছু জরুরি মাসায়েল

 

بسم الله الرحمن الرحيم

 

 

 

  1. 1.  তোশক পবিত্র করার নিয়ম

 

তোশক বা এজাতীয় জিনিশ- যা নিংড়ানো যায় না- তাতে নাপাকি লাগলে যদি তা উপরের আবরণে লেগে থাকে এবং ভিতরে প্রবেশ না করে, তাহলে সে নাপাকি দূর করে দেয়া বা তিন বার তার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত  করে দেয়ার দ্বারা তা পাক হয়ে যায়। কিন্তু যদি তোশক নাপাকি ভেতরে খুব ভালোভাবে চুষে নেয়, তা হলে তা তিন বার ধৌত করতে হবে। এবং প্রতিবার ধৌত করার পর শুকাতে হবে। শুকানোর অর্থ হচ্ছে তার উপর হাত রাখলে যেন ভিজে না যায়।-শামি: ১/৩৩২, কিতাবুল ফাতাওয়া كتاب الفتاوى

 

2. তুলা পবিত্র করার নিয়ম

 

তুলার মধ্যে নাপাক পতিত হলে তুলা ধুনার মাধ্যমে তা পাক হয়ে যায়।-শামী:১/৩১, فتاوى عثمانى

 

3.টয়লেটের মাছি শরীরে বসলে

 

পাক-নাপাকের ব্যাপারে মূলনীতি হল, যতক্ষণ পর্যমত নিশ্চিতভাবে নাপাক হওয়ার বিষয়টি জানা না যাবে, ততক্ষণ পর্যমত শুধু সন্দেহের বশবর্তী হয়ে কোনো জিনিসকে নাপাক বলা যায় না। সেমতে মশা-মাছি বসলে শুধু সন্দেহের বশে তা নাপাক বলা যাবে না। অবশ্য বাস্তবে নাপাকি দৃষ্টিগোচর হলে ভিন্ন কথা। তবে মশা-মাছির মাধ্যমে বাহিত নাপাক যেহেতু খুবই সামান্য। তাই তা লেগে থাকলেও নামায হয়ে যাবে। অবশ্য তা ধুয়ে পরিচ্ছন্ন করে নেয়াই উত্তম। হিন্দিয়া: ১/৪৫ كتاب الفتاوى

 

4. মুরগি পানিতে মুখ দেয়া

 

যদি মুরগি নাপাক দ্রব্য খেয়ে সাথে সাথে পানিতে মুখ দেয়, তা হলে পানি নাপাক হয়ে যাবে। আর যদি এরূপ হওয়া নিশ্চিত না হয়, কিন্তু মুরগি খোলা ছেড়ে দেয়া থাকে যার কারণে তার ঠোটে নাপাকি থাকার সম্ভাবনা থাকে, তা হলে নিশ্চিত হওয়ার আগ পর্যমত তার মুখ দেয়া পানিকে নাপাক তো বলা যাবে না, তবে তা মাকরূহ অবশ্যই হবে। সুতরাং অন্য ভালো পানি থাকাবস্থায় এরূপ পানি ব্যবহার থেকে বিরত থাকবে। অবশ্য যদি মুরগি বাধা অবস্থায় থাকে কিংবা যেকোনোভাবে তার ঠোটে নাপাকি না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয়, তা হলে পানি মাকরূহ ছাড়াই পবিত্র বলে গণ্য হবে। তাহতাবী:১৯, كتاب الفتاوى

 

5. ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি

 

ব্লিচিং পাউডার কোনো নাপাক দ্রব্য নয়। সুতরাং তা পানির সাথে মিলানোর পর  যতক্ষণ পানির বহমানতার গুণ থাকবে, তা দ্বারা ওযু-গোসল করা যাবে। কিতাবুল ফাতাওয়া:১/৭৯

 

6. চামড়ার টুপি ও বেল্ট

 

টুপি ও বেল্ট ইত্যাদি যেহেতু চামড়া পরিশোধনের পর তৈরি করা হয়, তাই তা পবিত্র। অবশ্য যদি শুকুরের চামড়ার হয়, তা হলে তা পরিশোধন সত্ত্বেও পবিত্র হবে না। তাই তা ব্যবহার করা বৈধ নয়। জামেউল মাসনাদ ওয়াস সুনান: হাদীস নং ১৪৫৫, كتاب الفقه: 1/86

 

7. টয়লেট পেপার/টিস্যু

শরীয়তের দৃষ্টিতে সম্মান বজায় রাখা কর্তব্য নয়, এমন সকল দ্রব্য দ্বারা এস্তেঞ্জা করা যায়, যদি তা পবিত্র হয় এবং নাপাকি দূর করতে সক্ষম হয়। টয়লেট পেপার বা টিস্যুর মধ্যে যেহেতু এ সকল শর্ত বিদ্যমান, তাই এর দ্বারা এস্তেঞ্জা বৈধ। الفقه الإسلامى وأدلته:1/195

 

8. হাউজ বা ট্যাংকি পাক করার নিয়ম

 

  • হাউজ বা ট্যাংকি যদি ১০০ বর্গ হাত বা তার চেয়ে বড় হয়, তা হলে তাতে নাপাকি পড়লে বা কোনোপ্রাণী মারা গেলে তার পানি নাপাক হয় না। আর ১০০ বর্গ হাতের চেয়ে ছোট হলে নাপাক হয়ে যায়। অবশ্য মাছ, কাকড়া, পানির ব্যাঙ ইত্যাদি জলজপ্রাণী মরলে তাতে পানি নাপাক হয় না। তবে এসব প্রাণীও যদি মরে পঁচে গলে যায়, তা হলে তার পানি পান করা বা তা দ্বারা কিছু রান্না করা ঠিক নয়। যদিও ওযু-গোসল করা ঠিক আছে।
  • সাধারণত হাউজ বা ট্যাংকি  দুই ধরণের হয়ে থাকে। যথা-

. আন্ডারগ্রাউন্ড ট্যাংকি। যাতে সরকারি পাইপ লাইনের মাধ্যমে পানি এসে তা ভরে যায়।

. ছাদে বা উপরে স্থাপিত ও নির্মিত ট্যাংকি। যা থেকে বিভিন্ন রুমে ওযু-গোসল ইত্যাদির জন্য পানি সরবরাহ করা হয়।

এই উভয় ধরনের হাউজ বা ট্যাংকিতে একদিকের পাইপ থেকে পানি আসতে থাকে আর অন্যদিকের পাইপ দ্বারা তা বের হতে থাকে। এমতাবস্থায় তাতে যদি কোনো নাপাকি পড়ে, তা হলে সে ট্যাংকির পানি নাপাক  হবে না। কারণ, সেটা প্রবহমান পানির পর্যায়ভুক্ত। অবশ্য যদি উক্ত পানিতে নাপাকির রং, গন্ধ ও স্বাদ পাওয়া যায়, তা হলে যতটুকু পানিতে রং, গন্ধ ও স্বাদ পাওয়া যাবে, তা নাপাক হয়ে যাবে। অনুরূপভাবে যদি পানি উভয় দিক থেকে প্রবাহকালে নাপাক বস্ত্তটি পতিত হয়ে কোনো একদিকের পাইপের পানি চলাচল বন্ধ হওয়ার  পরও তাতে পরে থাকে, তা হলেও পানি নাপাক হবে। আর যদি কোনো একদিকের লাইনের পানি বন্ধ থাকাবস্থায় নাপাকি পতিত হয়, তা হলে হাউজ বা ট্যাংকি নাপাক হয়ে যাবে।

 

আর তা পবিত্র করার দুটি নিয়ম রয়েছে। যথা-

. যদি হাউজে কোনো নাপাক বস্ত্ত থেকে থাকে, তা হলে প্রথমে তা তুলে ফেলে দিতে হবে। তারপর হাউজের বাইরে থেকে কোনো দিকের পাইপ দিয়ে ভেতরে ভালো পানি প্রবাহিত করবে এবং একই সাথে উক্ত হাউজের অন্যদিক দিয়ে পাইপের মাধ্যমে বা নল ছেড়ে দিয়ে পানি বের করতে থাকবে। এরূপ করা শুরু করার সাথে সাথেই হাউজ বা ট্যাংকি পবিত্র হয়ে যাবে। এজন্য হাউজ থেকে সম্পূর্ণ পানি বা নির্দিষ্ট পরিমাণ পানি বের করা জরুরি নয়।

. আন্ডারগ্রাউন্ড বা রিজার্ভ ট্যাংকি হলে সরকারি পাইপ থেকে পানি আসতে আসতে সেটি ভরে গিয়ে যখন মুখ থেকে পানি উপচে পড়া শুরু হবে, তখন তা পাক  হয়ে যাবে। আর উপরের ট্যাংকি হলে তা থেকে টয়লেট-বাথরূম ইত্যাদিতে পানি যাওয়ার সব লাইন বন্ধ করে দেবে। তারপর মেশিনের সাহায্যে তাতে পানি ভরা শুরু করবে। যখন উপরের পাইপ বা মুখ থেকে পানি উপচে পড়া শুরু হবে, তখন উপরের ট্যাংকি ও তার সাথে সংযুক্ত সকল পাইপ পাক হয়ে যাবে। অবশ্য এক্ষেত্রে তিন বার ট্যাংকি ভরে প্রত্যেক বার পানি ফেলে দেয়া ভালো। آلات جديدة  كے شرعى أحكام

 

  1. 9.   নলকূপ পাক করার নিয়ম

 

  • যদি নলকূপে এমন নাপাক বস্ত্ত পতিত হয়, যা বের করা সম্ভব। তা হলে প্রথমে তা বের করবে। তারপর নাপাক এই বস্ত্ত পতিত হওয়ার সময় নলকূপের নলে যে পরিমাণ পানি ছিল, তা বের করে ফেলে দিলেই নলকূপ পবিত্র হয়ে যাবে। পেশাব ও এজাতীয় তরল নাপাক পড়লেও উক্ত পরিমাণ পানি বের করলে নলকূপ পাক হয়ে যাবে।

যদি নলকূপে পায়খানা ও গোবর ইত্যাদি স্থুল নাপাকি পতিত হয় আর তা বের করা সম্ভব না হয়, তা হলে নাপাক বস্ত্তটি মাটিতে রূপামতরিত হতে যতদিন লাগে, ততদিন পর্যমত বিলম্ব করতে হবে। তারপর পূর্বের নিয়মে পানি বের করে তা পবিত্র করবে। آلات جديدة  كے شرعى أحكام

 

  1. 10.         ড্রাই ওয়াশের মাধ্যমে কাপড় পবিত্র করা

 

যদি কাপড় পূর্ব থেকে পবিত্র থাকে, তা হলে তা নাপাক কাপড়ের সাথে না মিশিয়ে ড্রাইওয়াশ করা হলে তা নাপাক হবে না। আর নাপাক কাপড় ওয়াশের সময় তাতে পেট্রল বা এজাতীয় কোনো তরল পদার্থ যদি এ পরিমাণ দেয়া হয় যে, কাপড়টি ভিজে নিংড়ানোর উপযুক্ত হয়ে যায়, তা হলে ওয়াশের পর তা পাক বলে বিবেচিত হবে। অন্যথায় ওয়াশের পর পানি দ্বারা পুনরায় ধৌত করে তা পাক করতে হবে। শামী: ১/৩০৯, হাক্কানিয়া: ২/৫৭৭

 

11. নাপাক চর্বি বা দ্রব্য দ্বারা তৈরি সাবান

 

নাপাক দ্রব্য দ্বারা সাবান প্রস্ত্তত করার কারণে নাপাক দ্রব্যটির মৌলিক অবস্থা সম্পূর্ণরূপে পরিবর্তিত হয়ে যায়। তাই উক্ত সাবান পবিত্র বলে গণ্য।

 

  1. 12.         প্লাস্টিকের পাত্র পবিত্র করার নিয়ম

 

প্লাস্টিকের পাত্র যেহেতু পানি চুষে নেয় না, তাই শুধু  তিন বার ধৌত করলেই তা পবিত্র হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে প্রতিবার ধোয়ার পর পাত্রটি শুকানো আবশ্যক নয়। শামী:১/৩৩২ (حقانية:2/520)

 

 

  1. 13.        লন্ড্রিতে কাপড় ধোয়ানো 

কাপড় ধৌত করার সময় ধোপারা সাধারণত একসাথে অনেক কাপড় ভিজিয়ে রাখে। এর মধ্যে কোনো কাপড় নাপাক থেকে থাকলে পাক কাপড়ও নাপাক হয়ে যায়। তখন সব কাপড় নিয়মমত পাক করা প্রয়োজন। ধোপারা এরূপ করে কি না, তা নিশ্চিত করে বলা কঠিন। তাই লন্ড্রির মাধ্যমে কাপড় ধোলাই করার ব্যপারে সতর্কতা অবলম্বন আবশ্যক। তবে একামতই কেউ পাক কাপড় দেয়ার পরে তা নাপাক হয়েছে বলে নিশ্চিত না হলে  সে কাপড় নাপাক ধরা হবে না। পক্ষামতরে পাক কাপড় দিলেও তা পবিত্র হওয়ার বিষয়টিও অনিশ্চিত থাকায় তা পাক বলে বিবেচিত হবে না। أحسن الفتاوى

 

14. কাপড় পাক করার জন্য বিসমিল্লাহ বা কালেমা পড়া

 

কাপড় তিনবার ধৌত করার মাধ্যমে পবিত্র হয়ে যায়। এর সাথে বিসমিল্লাহ বা কালেমার কোনো সম্পর্ক নেই। ফাতাওয়া উসমানী: ১/৩২২

 

১৬. তেল পবিত্র করার নিয়ম

 

তেল পবিত্র করার নিয়ম হল, তা কোনো পাত্রে রেখে তেলের সমপরিমাণ পানি তার সাথে ভালোভাবে মিশাবে। তারপর কিছুক্ষণ রেখে দেবে। যখন তেল সবটুকু উপরে চলে আসবে, তখন উপর থেকে তেল উঠিয়ে নেবে বা পাত্রের নিচে ছিদ্র করে পানি ফেলে দেবে। এভাবে তিন বার করলে তেল পবিত্র হয়ে যাবে। হিন্দিয়া:১/৪২, উসমানী: ১/৩১৭

 

১৭ সেন্ট ও স্প্রিট

সেন্ট ও স্প্রিট তৈরি করতে যে এলকোহল ব্যবহার করা হয়, তা খেজুর বা আঙ্গুর দ্বারা তৈরি হয় না। তাই তা নাপাক নয়। আহসানুল ফাতাওয়া:১/৯৫

 

১৮. কেরোসিন তেল

 

কেরোসিন তেল এবং এজাতীয় খনিজ তেলের কোনোটিই নাপাক নয়। ফাতাওয়ায়ে উসমানী:১/৩২০

 

১৯. কুকুরের শরীরের পানি

 

কুকুরের শরীরে পাক পানি পড়ার পর সে শরীর ঝাড়া দেয়ার কারণে পানির ছিটা কারো শরীরে, কাপড়ে বা কোনোকিছুতে আসলে তা নাপাক হবে না। আহসানুল ফাতাওয়া:২/৮৬

 

২০. পাকা জমিনে নাপাকির হুকুম

 

পাকা করা স্থানে নাপাকি পড়লে তা পানি দ্বারা ধৌত করলে পবিত্র হয়ে যায়। তা ছাড়া যদি উক্ত নাপাক মেঝে শুষ্ক হয়ে যায় এবং তাতে নাপাকির চিহ্ন ও দুর্গন্ধ না থাকে, তা হলেও তা পবিত্র হয়ে যায়। অবশ্য এক্ষেত্রে তা দ্বারা তায়াম্মুম করা বৈধ হবে না। আহসানুল ফাতাওয়া:২/৮৮